ছোটোলোকের বাবা

মলয় রায়চৌধুরী আমার বাবা রঞ্জিত রায়চৌধুরী জন্মেছিলেন বর্তমান পাকিস্তানের লাহোর শহরে, ১৯২০ সালে । পাঞ্জাবের মহারাজা রঞ্জিত সিংহ সম্পর্কিত গালগল্পে প্রভাবিত হয়ে ঠাকুমা, যাঁর নাম ছিল অপূর্বময়ী, বাবার অমন নাম রেখেছিলেন । রঞ্জিত সিংহ জন্মেছিলেন ১৩ই নভেম্বর ১৭৮০ । বাবাও জন্মেছিলেন ১৩ই নভেম্বর । ছয় ভাই আর এক বোনের মধ্যে …

সম্পুর্ন​

স্মরণ: ২৩ জুলাই ছিল কবি ভাস্কর চক্রবর্তীর প্রয়াণ দিবস…

গতকাল ২৩ জুলাই ছিল কবি ভাস্কর চক্রবর্তীর প্রয়াণ দিবস। এই উপলক্ষে প্রতি বছরের মতো এবারও ভাস্কর  চক্রবর্তী স্মারক বক্তৃতার আয়োজন করা হয়েছিল। এ বছর এই স্মারক বক্তৃতা দেন, কবি মৃদুল দাশগুপ্ত। কবিতা পাঠ করেন, কবি রণজিৎ  দাশ। অনুষ্ঠানের শুরুতে, সদ্যপ্রয়াত  সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ-এর অকালপ্রয়াণে  একটি শোকপ্রস্তাব পাঠ করেন একালের রক্তকরবী …

সম্পুর্ন​

স্মরণ: হুমায়ূনহীন একটা পৃথিবী

নান্নু মাহবুব ২০ জুলাই দুপুরে দূরের হাইওয়েতে বেরিয়েছি। চারদিকে হুমায়ূনহীন একটা পৃথিবী। ঘন, গভীর, ভেজা, উজ্জ্বল, সবুজ। মাঝে মাঝেই আকাশ ভরে যাচ্ছে মেঘে। পান্নাসবুজ পৃথিবীর ওপরে নেমে আসছে ঝরঝরিয়ে বর্ষা। ধানের চারার সবুজ সমুদ্রে একটা হলুদ প্রজাপতি নাচতে নাচতে আড়ালে চলে গেলো। পরমুহূর্তেই দেখা দিলো আরেকটা ফুটি ফুটি ধূসর প্রজাপতি। …

সম্পুর্ন​

রবীন্দ্রনাথের জন্মের দেড়শো বছর স্মরণ: পারস্যে রবীন্দ্রনাথ ২

                                                        আগের কিস্তি: পারস্যে রবীন্দ্রনাথ ১ অনুবাদ: মাসুদ খান ইরানের জনৈক সাংসদের সঙ্গে কবির আলোচনা রবীন্দ্রনাথ: পারস্য ছেড়ে চলে যাবার দিন ঘনিয়ে আসছে আমার। বেশি দিন থাকিনি এখানে, তবু নিজেকে ভিনদেশি বলে বোধ হচ্ছে না। অবাক ব্যাপার, যদিও আপনাদের ভাষা জানি না, তবু কোনো না কোনোভাবে আমি আপনাদের খুব কাছাকাছি চলে …

সম্পুর্ন​

রবীন্দ্রনাথের জন্মের দেড়শো বছর স্মরণ: পারস্যে রবীন্দ্রনাথ ১

অনুবাদ: মাসুদ খান ‘ইস্পাহান’ পত্রিকার সম্পাদকের সঙ্গে আলাপ ২৫ এপ্রিল, ১৯৩২ প্রশ্ন: স্বাগতম, মহাশয়, এই দেশে আপনাকে স্বাগতম। এ ভূমি আপনাকে দিচ্ছে সমুচ্চ সম্মানের স্থান। এ যাবৎ কেমন উপভোগ করলেন এ দেশে আপনার সফর, জানতে পারি কি? কবি: সুন্দর আপনাদের এই দেশ আর অভিভূতকর আপনাদের মেহমানদারি। যেখানেই গেছি, দারুণ উপভোগ্য …

সম্পুর্ন​

বিস্মৃতি অথবা এক সামাজিক পাপ: প্রসঙ্গ মৌমাছি

এন জুলফিকার ‘মতের ভিত্তি যে-জাতি যত শক্ত, সেই জাতিই তত বড়ো। উন্নতির পথ তাদের কাছেই খোলা।’ — আজ থেকে ৭০ বছর আগে ১৩৪৭ বঙ্গাব্দের ২৭ শ্রাবণ এক খোলা চিঠিতে ‘আনন্দমেলা’-র কচি-কাঁচাদের তেমনই জানিয়েছিলেন তিনি। ছোটদের মতের ভিত্তিকে মজবুত করার জন্য তাঁর চিন্তার অবধি ছিল না। তিনি বিশ্বাস করতেন মানুষের সঙ্গে …

সম্পুর্ন​

লাল মিয়ার রাষ্ট্র

সাখাওয়াত টিপু ‘রাষ্ট্রের আকার সার্বজনীন আর আকারের আসল উপাদান চিন্তা।’ -ফ্রিডরিক হেগেল (১৭৭০-১৮৩১) বাংলার চিত্রসাধক শেখ মুহাম্মদ সুলতানের আদি নাম লাল মিয়া (১৯২৩-৯৪)। লাল মিয়ার চিত্রকর্ম লইয়া যে কয়খানা লিখা প্রচারিত তাহার ভিতর মনীষী আহমদ ছফার রচনাখানি বেহতর। প্রশ্ন উঠিতে পারে— ছফার এহেন রচনা থাকিতে আমরা কেন মাতিলাম? তাহার কারণ …

সম্পুর্ন​

স্মরণ: “সারাক্ষণ হাতে চাই গানের বাকশো যেতে যেতে গান গাবো তাই…”

নভেরা হোসেন ১৯৯০ সালের এপ্রিল মাস। লিটল ম্যাগাজিন, ফ্রানৎস কাফকা, সুবিমল মিশ্র, ঢাকার শিল্প-সাহিত্য-এই সবকিছুর সাথে বন্ধুত্বের এক পর্যায়ে কবি শামীম কবীরের সাথে পরিচয়। অল্প কিছুদিনের মধ্যেই শামীমের সংবেদনশীল চরিত্র  আর তীক্ষ্ম মেধার পরিচয় পেলাম। ধনেশ পাখির মতো গম্ভীর অথচ ভেতরে ভেতরে অশান্ত কবির অবয়ব। সেঁকোবিষ আর পোড়া মদ দিয়ে …

সম্পুর্ন​

গদ্য: অ্যাভেন-গার্ড চলচ্চিত্রের অগ্নিকন্যা মায়া ডেরেন

ফেরদৌস নাহার বিংশ শতাব্দী। যুদ্ধ- মহাযুদ্ধ, বিগ্রহ- বিপ্লব, বাদ- প্রতিবাদ সবকিছু নিয়ে পুরো শতাব্দী ধরে ঘটে যাওয়া এক একটি ঘটনা মানব সভ্যতার ইতিহাসকে উলট-পালট করে দিয়ে গেছে। তারই মাঝে মানুষ বেঁচে থেকেছে, জেগে উঠেছে বার বার। জ্ঞান-বিজ্ঞান, শিল্প-সংস্কৃতি, সৃষ্ট-নির্মাণ কোনো কিছুই থেমে থাকেনি। আমি যখন মুগ্ধ বিস্ময়ে অবলোকন করি- দেখি, …

সম্পুর্ন​

স্মরণ: চেতনাতে নজরুল…

হাসিব নেওয়াজ ‘ভোর হলো দোর খোল, খুকুমনি ওঠোরে…’ এই লাইনগুলোর মাধ্যমে শৈশবে কাজী নজরুল ইসলামের সাথে আমাদের পরিচয়। পরবর্তীতে স্কুলের আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় ‘দেখিনু সেদিন রেলে, কুলি বলে এক বাবুসাব তারে ঠেলে দিলো নিচে ফেলে’— উচ্চারিত শব্দমালা নতুন এক পৃথিবীর সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়। এরপর ‘বিদ্রোহী’ কবিতাটি বার বার পড়েছি। রণসংগীত ‘চল্ …

সম্পুর্ন​

স্মরণ: কবি আজীজুল হক

উত্তম চক্রবর্তী কবি আজীজুল হক (জন্ম ১৯৩০, মৃত্যু ২০০১) প্রতিভার স্বাতন্ত্র্যে উজ্জ্বল, বিশ শতকের পঞ্চাশ-ষাট দশকের এক প্রতিশ্রুতিশীল কাব্যশিল্পী। সমকালীন সমাজ ও রাষ্ট্র বিষয়ে ক্রমাগত দ্বন্দ্ব-দ্রোহ ও রক্তপাতের প্রেক্ষাপটে অনিবার্য মুক্তির আকাঙ্ক্ষাকে তিনি শিল্পীত করেছেন তাঁর কবিতায়। আপন অস্তিত্বকে বোধ করে তা রক্ষার প্রগাঢ় আর্তনাদে মুখর থাকতে দেখা যায় তাঁকে। কখনো …

সম্পুর্ন​

অস্তিত্বের অফুরান উৎস রবীন্দ্রনাথ

মহিউদ্দীন মোহাম্মদ প্রতিবছরের মতো এবারও বাংলা পঞ্জিকার বাইশে শ্রাবণ কবিগুরু, বিশ্বকবিসহ নানা অভিধায় সম্বোধন করে বাঙালি প্রাণের ডাক পৌঁছে দিয়েছে তাদের সাংস্কৃতিক অস্তিত্বের অফুরান উৎস রবীন্দ্রনাথের কাছে। আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালবাসি – কবিগুরু রচিত এই গান বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত। ভারতের জাতীয় সঙ্গীতের রচয়িতাও বহুমাত্রিক অনন্য এই লেখক। বাংলাদেশের …

সম্পুর্ন​

স্মরণ: মাইকেল মধুসূদন দত্ত নবজাগরণের প্রথম প্রাণপুরুষ

উত্তম চক্রবর্তী বাংলা সাহিত্যে আধুনিক যুগের প্রবর্তক কবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত। বাংলা সাহিত্যে প্রথম বিদ্রোহ ও সংগ্রাম তিনিই সূচনা করেন এবং সর্বোতভাবে সফল হন। প্রাচীন ও মধ্যযুগের ধীর, অলস ও একমাত্রিক জীবন-যাত্রার তাল-ছন্দ তিনিই ভেঙেছেন, এ তাঁর বৈপ্লবিক কর্মযজ্ঞ। মধুসূদন নতুন কালের আহবান উপলব্ধি করেছিলেন—আর এজন্যে বাংলা সাহিত্যের গতানুগতিক আঙ্গিক, …

সম্পুর্ন​