সত্তর দশক

অংকুর সাহা ।।১।। ধুলি ওড়ে, ছাই ওড়ে,  ভবিষ্যত গাঢ় অন্ধকার তীর্থের কাকের মত খোঁচর পাহারা দেয় চকে; ধর্ম শান্তি রক্ষা ছেড়ে একশো বারো মাইনের পুলিশ- লক আপে জাঁকিয়ে আসে, তলপেটে বুটের লাথি কষে। মা-বাবা হাপুস কাঁদে, কোথায় সোনার টুকরো ছেলে? সে চলে গিয়েছে বনে, গড়বে লাল বিন্দু, মুক্তাঞ্চল; দুচোখে গভীর …

সম্পুর্ন​

দীর্ঘ কবিতা: বিনয়মঙ্গল

অংকুর সাহা ১১ ডিসেম্বর ২০০৬ প্রত্যূষে আমার ঘরে                অজস্র রাশিতে ঝরে অঘ্রানের মেঘবৃষ্টিমালা– কন্যারে ছাড়িয়া স্কুলে              পর্জন্য ধারায় দুলে কর্মস্থলে গমনের পালা। আপিসে চেয়ারে বসি                আন্তর্জালেতে পশি আচম্বিতে দুঃসংবাদ আসে- অকালে ডাকিল বান                  বিনয়ের তিরোধান শিমুলপুরে নিজস্ব আবাসে। এ দুঃখ কোথায় রাখি?                শোকগাথা গায় পাখি চরাচরে বিষণ্ণতা ছায়– কাব্যে ও গণিতশাস্ত্রে                   দিবসে এবং রাত্রে ক্রমাগত …

সম্পুর্ন​

বিমানযাত্রীর চতুর্দশপদী

অংকুর সাহা ১ কোমরবন্ধনী বেঁধে বসে আছি সংকীর্ণ আসনে শুধু সামীপ্যের জন্য দক্ষিণী, অচেনা ব্যক্তিটিকে বন্ধু বলে মনেহয়— যেন কত কাল ধরে চিনি; অন্যধারে গৃহিনী সে মগ্ন, নিমজ্জিত মেনুকার্ডে হিন্দু মিল বলে দিলে ভাল হত, দ্যাখো কী সুন্দর পোলাও এর গন্ধ ভাসে শীতাতপ-নির্ভীক বাতাসে— খুব কম ঝাল দেওয়া ভেড়ার মাংসের …

সম্পুর্ন​

প্রার্থনা: মুখতার মাইএর জন্যে

অংকুর সাহা তোমার ছিল দুখের সংসার সূর্য-রাগী, আগুনভরা তেজ; তোমার পায়ে পাথুরে রুখো মাটি কান্না, ঘাম, খিদের সংশ্লেষ। সমাজ তোমার আদতে পুরুষালি, রমণী হীন, দ্বিতীয় শ্রেণী, পণ্য; হেঁসেল, আঁতুড়, প্রহার, সহবাস সমতা কবে আসবে তোমার জন্যে। গ্রামের উঠোন, গেরস্থালি, ঘর কৃষিকর্ম দুপর বেলায় মাঠে; তালাক দিল হৃদয়হীন খশম একা শয্যায় …

সম্পুর্ন​

অংকুর সাহার ছড়া: বারাক ওবামা (১৯৬১ – )

[প্রাককথন: এমন একটা সময় ছিল যখন পৃথিবীর সব ক্রিকেট খেলোয়াড়রাই আমার চেয়ে বয়েসে বড়— ডন ব্র্যাডম্যান থেকে শুরু করে সুনীল গাভাসকার। তারপর ১৯৭০ দশকের দ্বিতীয়ার্ধে আমার সমবয়েসিরা শুরু করলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। বর্তমানের ক্রিকেটাররা সবাই আমার হাঁটুর বয়েসি। আমেরিকার রাষ্ট্রপতি পদে বরাক ওবামার মনোনয়ন এবং নির্বাচন এক যুগান্তকারী ঘটনা। ২০০৮ সালের …

সম্পুর্ন​

পিয়া ট্যাফড্রাপের একটি অবিস্মরণীয় কবিতা

পিয়া ট্যাফড্রাপ ডেনমার্কের শীর্ষস্থানীয় কবি। জন্ম ২১ মে ১৯৫২। ২০০৮-০৯ এর শীতকালে আমি ”তুষারে একাকী ঋক্ষ” নামে স্ক্যান্ডিনেভিয়ার কবিতার একটি বাংলা অ্যান্থোলজি সম্পাদনার কাজে রত ছিলাম। তখন তাঁর সঙ্গে প্রথম যোগাযোগ। সদ্য নতুন দিল্লির এক কবিতা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ফিরেছেন তিনি– ভারতবর্ষ সম্পর্কে গভীর উৎসাহ। তিনি ভারতবর্ষে গিয়েছিলেন মুম্বাই এর …

সম্পুর্ন​