হাংরি আন্দোলন ও শক্তি চট্টোপাধ্যায়

মলয় রায়চৌধুরী দাদা সমীর রায়চোধুরী, তাঁর বন্ধু শক্তি চট্টোপাধ্যায়, যিনি চাইবাসায় দাদার নিমডি পাহাড়টিলার চালাবাড়িতে দু’বছরের বেশি ছিলেন, আমি, এবং আমার বন্ধু দেবী রায়, আমরা চারজন ১৯৬১ সালের নভেম্বরে, পাটনায় আমাদের বাড়িতে বসে কয়েকদিনের আলোচনার পর নির্ণয় নিই যে আমরা উত্তরঔপনিবেশিক পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক-সাংস্কৃতিক ও সাহিত্যের প্রেক্ষিতে “হাংরি আন্দোলন” নামে একটা …

সম্পুর্ন​

চাইবাসা ও শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের প্রেম

মলয় রায়চৌধুরী           শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের ‘কিন্নর কিন্নরী’ উপন্যাস প্রকাশিত হয়েছিল ১৯৭৬ সালে, ঘটনাগুলো ১৯৫৬ থেকে ১৯৬০ সালের, চাইবাসায় টানা যতদিন ছিলেন, সেসময়ের । তাঁর ‘কুয়োতলা’ উপন্যাস, যা তাঁর শৈশবের কাহিনি, সে উপন্যাসে তিনি নিজের নাম দিয়েছিলেন নিরুপম; পরে নিজের জীবনের ঘটনাবলী নিয়ে যে আখ্যানগুলো লিখলেন, প্রতিটি উপন্যাসে তিনি নিরুপম । …

সম্পুর্ন​

ছোটোলোকের বাবা

মলয় রায়চৌধুরী আমার বাবা রঞ্জিত রায়চৌধুরী জন্মেছিলেন বর্তমান পাকিস্তানের লাহোর শহরে, ১৯২০ সালে । পাঞ্জাবের মহারাজা রঞ্জিত সিংহ সম্পর্কিত গালগল্পে প্রভাবিত হয়ে ঠাকুমা, যাঁর নাম ছিল অপূর্বময়ী, বাবার অমন নাম রেখেছিলেন । রঞ্জিত সিংহ জন্মেছিলেন ১৩ই নভেম্বর ১৭৮০ । বাবাও জন্মেছিলেন ১৩ই নভেম্বর । ছয় ভাই আর এক বোনের মধ্যে …

সম্পুর্ন​

সুর্পনখা-বাল্মীকি সংবাদ

মলয় রায়চৌধুরী   সুর্পনখা ।। খুবই জঘন্য কাজ হয়েছে তোমার আদি কবি এভাবে আমাকে পাঁকের মৃণ্ময়ীরূপে মহাকাব্যে হেয় করা। তাই অনুরোধ করি আমাকে পাঠিয়ে দাও, মহাভারতের গল্পে। ব্যাস আমাকে নিশ্চিত আমার মনের মত সুপুরুষ পাইয়ে দেবেন। বাল্মীকি ।। কী যে বলছিস তুই স্পষ্ট করে বল সুর্পনখা; মহাভারতের গল্পে পাঠালে আমার …

সম্পুর্ন​

মহানগরে পথচর বদল্যার

মলয় রায়চৌধুরী কী এক ইশারা যেন মনে রেখে একা-একা শহরের পথ থেকে পথে অনেক হেঁটেছি আমি; অনেক দেখেছি আমি ট্রাম বাস সব ঠিক চলে তারপর পথ ছেড়ে শান্ত হয়ে চলে যায় তাহাদের ঘুমের জগতে সারারাত গ্যাসলাইট আপনার কাজ বুঝে ভালো করে জ্বলে । কেউ ভুল করেনাকো – ইঁট বাড়ি সাইনবোর্ড …

সম্পুর্ন​

মলয় রায়চৌধুরীর প্রহসন: ভরসন্ধ্যা

[একটি কদমগাছ ছেয়ে আছে ফুলে ; গাছটির চারিপাশে উবু হয়ে বসে উনত্রিশজন বুড়োবুড়ি আর জনা ছয় যুবক-যুবতী । সকলেই তারা ওপরে তাকিয়ে আছে কদম গাছের পানে ; বোঝা যায় তারা অপেক্ষা করছে গাছটির অন্ধকার থেকে একজন অতিমানুষের আগমন । লোকগুলো এসেছে বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এ-আশায় কদম গাছটি নাকি সেই গল্পতরু …

সম্পুর্ন​

মলয় রায়চৌধুরীর কাব্যনাট্য

যে জীবন ফড়িঙের দোয়েলের পাত্রপাত্রী: ১. কাশ্যপ ফিকির। বৃদ্ধ। শবের বাগানের কেয়ারটেকার। ২. বদ্যিনাথ। যুবক। কাশ্যপ ফিকিরের ছেলে। ৩. বিভূতিসুন্দর। প্রৌঢ়। ষষ্ঠ শতকের সম্রাট হর্ষবর্ধনের গুপ্তচর। ৪. দেবযানী। ১৮ শতকের যুবতী। ৫. চিনু হাঁসদা। প্রৌঢ়। নীলচাষী। ১৮৬০-এর বিদ্রোহে নিহত। ৬. হাঁদু লস্কর। যুবা। নীলচাষী। ১৮৬০-এর বিদ্রোহে নিহত। ৭. পাঁচটি শেয়াল। …

সম্পুর্ন​

ভালবাসার উৎসব

একটি হাইপার রিয়াল পদ্যনাটিকা মলয় রায়চৌধুরী   পরিদৃশ্য: পায়রোটেকনিকে তোলা রঙিন ঝড় ( গাঢ় লাল, কমলা, হলুদ, সবুজ, নীল, বেগুনি এবং গোলাপি । রঙগুলো প্রতিটি নারীর ভাবকল্প। ) সাত রঙের ঝোড়ো আলো (যে-রসায়নে আলো গড়ে উঠেছে: লিথিয়াম ক্লোরাইড, ক্যালসিয়াম ক্লোরাইড, সোডিয়াম ক্লোরাইড, কপার সালফেট, কপার ক্লোরাইড, পটাশিয়াম সালফেট এবং পটাশিয়াম …

সম্পুর্ন​

আরব বিপ্লবের কবি তামিম আল-বারঘুতি

অনুবাদ: মলয় রায়চৌধুরী [মিশরের তাহরির স্কোয়ারে যাঁর কবিতা বার-বার পঠিত হয়েছে, এবং পরে অন্যান্য আরব দেশগুলোর গণবিপ্লবে যাঁর কবিতা পড়া হয়েছে, তিনি তামিম আল-বারঘুতি। তামিম-এর জন্ম কায়রোতে, ১৯৭৭ সালে। তাঁর বাবা ছিলেন প্যালেস্টিনীয় কবি মুরিদ বারঘুতি এবং মা নামকরা ঔপন্যাসিক মিশরীয় নাগরিক রাদওয়া আশুর। এ-পর্যন্ত তামিম-এর চারটি কাব্যগ্রন্হ ও দুটি …

সম্পুর্ন​

মরে গেলি, অরুণেশ?

মলয় রায়চৌধুরী মরে গেলি? সত্যিই মরে গেলি নাকি অরুণেশ? রূপসী বাংলার খোঁজে আসঙ্গ-উন্মুখ শীতে বেপাড়া-ওপাড়া ঘেঁটে শেষ-মেশ ঝিলের সবুজ ঝাঁঝরিতে ডুব দিলি ! যবাক্ষারযানে কালো বিষগানে আধভেজা উলুপীর সাপ-রক্ত মিঠেল শীৎকারে হৃদযন্ত্রে দামামা বাজতেই বুক খামচে জলে নেমে গেলি, বাড়িতো পিছনে ছিল; সেদিকে গেলি না কেন? ডাঙার গেঁজেল হায়নারা যৌবনে …

সম্পুর্ন​

মলয় রায়চৌধুরীর কবিতা

মর মুখপুড়ি   এই বেশ ভাল হল অ্যামি, বিন্দাস জীবন ফেঁদে তাকে গানে-নাচে-মাদকের জুয়ার পূণ্যে আ্যামি, কী বলব বল, অ্যামি ওয়াইনহাউস, অ্যামি, আমি তো ছিলুম তোর জানালার কাঁচ ভেঙে ‘ল্যাম্ব অফ গড’এর দামামায় বাজপড়া-গিটারের ছেনাল-আলোয় চকাচৌঁধ ভাম আ্যামি, আমি তো ছিলুম, তুই দেখলি না, হের্শেল টমাসের শিয়রে বিষের শিশি মাধুকরী …

সম্পুর্ন​

সিরিয়ার বিতর্কিত কবি আদুনিস

মলয় রায়চৌধুরী   আদুনিস (উচ্চারন: আহ-দুহ-নিইস), পিতৃদত্ত নাম আলি আহমেদ সাইদ অ্যাসবের, আরবি ভাষার একজন বিতর্কিত ও জনপ্রিয় কবি ও প্রাবন্ধিক। অবশ্য সংখ্যাগরিষ্ঠ ইসলামি দেশগুলোয় তাঁর রূঢ় সমালোচকের সংখ্যা কম নয়। তাঁর জন্ম ১৯৩০ সালের পয়লা জানুয়ারি পার্বত্য সিরিয়ার কাসাবিন গ্রামের শিয়া আউলিয়া পরিবারে। তাঁর বাবা, যিনি ছিলেন শিক্ষক ও …

সম্পুর্ন​

আদুনিস-এর কবিতার গদ্যানুবাদ

মলয় রায়চৌধুরী   বিশ্বাসঘাতকতা হে রাজদ্রোহের স্বর্গসুখ হে বিশ্ব যা আমার পদচিহ্ন জুড়ে— হে প্রাচীন মৃতদেহ— হে জগত যার প্রতি আমি বিশ্বাসঘাতকতা করেছি আর আজও করে চলেছি আমি সেই ডুবন্ত মানুষ যার চোখের পাতা প্রার্থনা জানায় জলের গর্জনের প্রতি। আর আমি সেই ঈশ্বর যে অপরাধের জগতকে আশির্বাদ করে আমি একজন …

সম্পুর্ন​