সৈয়দ আফসারের কবিতা

সংসার

গন্তব্য এক হয় না আমাদের, মতের অবস্থা চৌচির।
নীরবতার আড়ি পরস্পর, কথার ভিতর থেকে কথা
টেনে নিতে তৎপর। কোণঠাসা সোফায় বসা আমার
জড়োসড়ো শরীর, পুজোর পাথর…

আমরা যেন দু-মেরুর বাঁধ। সে দিনে আলো ছড়ালে
আমি রাতে-পূর্ণিমার চাঁদ। সব অধিকার তোমার,
অধীনতা, দায়ভার, কেবল আমার তবুও ভালোবাসা
তবুও মায়া, পাশাপাশি থাকা সংসার।

সংসার, চির সুন্দর একটি মায়া ফুলের মত ঘ্রাণে ভরপুর।

শূন্যগহ্বর

ভাবনা কেবল—জল, পাখি ও ফুল। আর এই জীবন, সে তো সুতো ছেঁড়া ঘুড়ির মতন। তোমাকে ঘিরে একটা বৃত্ত ঘুরে। রাখো যদি মনে, শেষ ফাল্গুনে দেখি না তো বহুদিন। মনে পড়ছে তোমায় ভীষণ। কেন তবে মায়ার ভাঁজে-ভাঁজে এত রোদন, এত দুঃখ নিরূপণ। নির্জন হাওয়া বেয়ে পাক খাওয়া মন, এ আমার জীবনদর্শন। ভাগ্যরেখা,চামড়ার নীচে থাকে যায় না দেখা। মানুষ কত কিছু আঁকে, আমি আঁকি গাছ, নদী, পাখপাখালি আর মাকে। পদে পদে বাঁধা পাই বলতে পারি না মুখে। তোমাকে ঘিরে এই দুপুরবেলা আমাদের আসা-যাওয়া চক্রাকারে; শূন্য গহ্বরে

ব্রত

অনায়াসে চলে গেছে, একা আমি এই বয়সের কাছে
এটুকু পথ হেঁটে যাব কী আমি, নদী আমাকে ডাকছে

কী এক টানে, বারবার পড়ে মনে, তোমাতে থাকি ব্রত,
মনে না-পড়লে কী আর হত, অন্তত: ভুলে থাকা যেত

এই শীত-বর্ষা, অঘ্রান-ফাল্গুন দিনে, রূপ বদলের ক্ষণে
তোমার অপলক মমতা বিঁধে আছে বামচোখের কোণে

একজোড়া চোখে চিনতে চাইলাম নিজেকে কিন্তু হল না
তবু বিস্ময় জাগে, খাঁচার পাখি দীর্ঘশ্বাস ছুঁতে পারে না!

 

ছোট্টকথা

মনের ভিতর খুঁড়ে-খুঁড়ে খায়, ছোট্ট-ছোট্ট কথায়
মানুষও আবার ধরাশায়ী হয়, ছোট্ট এই জিহ্বায়
তবু মানুষ মানুষকে বিশ্বাস করে কথা ও মায়ায়
তাকে দেখিনি ফিরে আসতে কল্পনা বা অনুক্রমে
ভালোবাসার মানে কী কেবল ভ্রম ও ভুল এক-খামে?
দাঁড়িয়েছি একা, আকাঙ্ক্ষা টেনে অবাক বিস্ময়ে
উপেক্ষার পাশে আমিও যে নির্ঘুম, সুদূরমগ্ন হয়ে
নির্জনতা পরে সে-ও লুকিয়েছে দেহের যত ক্ষত
আমাদের গল্প বেঁচেছে অল্প তাও খুব অপরিচিত
আমি যে বিরহী লোক, কিছুটা রক্ত ও মাংসে
তোমাকে অতিক্রম করলেই বাঁচি এই বিশ্বাসে

মুখোমুখি হব

এই শীতে, বুঝা বা না বুঝার মাঝে মন ভান ধরে থাকে তুমি দেখো, কিম্বা না-দেখো ঐ মায়াবী চোখের ফাঁকে এভাবে মাতাল করো না আমাকে। তুমি যে একটা নাম, অল্পস্বল্প আলোয় কিছু তো বুঝি, না-মেশা বুকের ক্ষতে.এই রহস্য ছুঁতে, অন্ধকারে রাখি চোখ, চোখের উপরে— আমাকে ডুবাও নিরপরাধ ঘুমের স্বপ্নডানায়—ঘনীভূত তৃষ্ণায়… একাকী দাঁড়িয়েছি আমি দোল খাওয়া দেহের অবহেলায়। আমার ঘুমটুকু অটুট থাকুক নিঃশব্দ-হাড়ে মরে গেলেই বাঁচি, মুখোমুখি হব চিতায়-শ্মশানে-কবরে

 

সৈয়দ আফসার 

জন্ম ও বেড়ে-ওঠা বাংলাদেশের সীমান্ত জনপদ সিলেটে হলেও বর্তমানে যুক্তরাজ্যবাসী। গত দেড়-দশকের বেশি সময় ধরে দেশের প্রতিনিধিত্ব পর্যায়ের সাহিত্য পত্রিকাগুলোতে লিখছেন, সমানতালে সক্রিয় আন্তর্জালিক বাংলা বর্ণমালা ভুবনেও, মূলত কবিতায় তার অভিনিবেশ ও অধিবাস। প্রায় দুইযুগ ধরে সম্পাদনা করেছেন পত্রিকা এক, কবিতাকেন্দ্রী, অর্কিড নামে। গদ্য লেখেন অনানুষ্ঠানিক, ব্লগস্পট ও ওয়েব-পত্রগুলোতেই প্রধানত। প্রকাশপ্রাপ্ত কবিতাবই এ-যাবত ৬টি।

Facebook Comments

One Comment

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।