পাঁচটি কবিতা

সুবীর সরকার

 

ছায়া

ছায়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছি
মজা করে কথা বলছো
লাজুক মুখ,পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া
হেসে ওঠে কাঠের হাতি

 

প্রচ্ছদ

যেমন জন্মদিন, পাকা
কাঁঠাল
একঝলকে চড়ুই পাখি
মঞ্চের দখল নিচ্ছি
সহবাস বস্তুতই বহুচর্চিত
প্রচ্ছদ

 

মুখোশ

গাছের নিচে দাঁড়িয়ে থাকলেই
হয় না;নিঃশ্বাস ঘন হবার
মূহুর্তে জলপ্রবাহ।খোলস ছাড়বার
সময়কার সাপ হয়ে গাত্রবর্ণ নিয়ে
ভাবতে থাকো। দেওয়ালে টাঙানো
মুখোশ।অর্ন্তঘাতের আশঙ্কায় কুঁজো
হয়ে হাঁটছি।
ঠোঁট নিয়ে হৈ চৈ বাঁধিয়ে দিচ্ছে
কারা

 

বৃত্তান্ত

বৃষ্টির বিরাম নেই।তার মধ্যেই
ঘোড়ার গাড়ি।বেদনাহীন বেঁচে থাকা।
কিংবা বৃত্তান্তকে একটু এগিয়ে দেয়
কাহিনি।হাসি মুছছি,যেভাবে ঘাম মুছি।
মোক্ষম গলুই।আসল অভিযান শুরু হোক
তবে।শেষ পর্যন্ত প্রান্তর ও পথবাতি।
বার্তা পাঠাচ্ছে মাছিমশা,চালু
গুজব।

 

গানবাড়ি

একই সঙ্গে মেঘ আর বৃষ্টি
ঘাড়ের গামছা নিয়ে সটান
গানবাড়ি
কাদোপন্থে দুধের ঘটি
জামার বোতাম থেকে জামদানি
সফরসূচি নির্ধারিত
হাসি দিয়ে অসুখ সারাবে

 

Facebook Comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।