নাভিদ চৌধুরীর ভ্রমণগদ্য-৬: বাবলা ফুল বা বেদুইনের গল্প

সন্ধ্যা নামছে ধীরে। আমি আকাশের লালিমা বিলীন হতে দেখছি দুরন্তে। জর্দানের রাজধানী আম্মান হতে প্রায় দেড়শ কিলোমিটার দূরে কারাক প্রদেশের এক অপূর্ব সুন্দর ওয়াদিতে আমি আর বন্ধু দানিয়েল (দানি) এসেছি …

নাভিদ চৌধুরীর ভ্রমণগদ্য-৫: স্পর্শ, অতঃপর

আমি চমকে নিচে তাকালাম। প্রথমে অন্ধকারে কিছুই দেখা গেল না। কী হতে পারে ? আমি উথালপাথাল জোছনায় আলো হওয়া বৈরুতের কর্নিশে ( সমুদ্রের তীর ঘেঁষে বাঁধানো পথ) একা বসে আছি। …

নাভিদ চৌধুরীর ভ্রমণগদ্য-৪: দুটি বৃত্ত, দুই বন্দি

জবা খুব মনোযোগ দিয়ে ঝাড়ু দিচ্ছে। আমি কাছে একটি সিঁড়ির ওপর বসে চা খাচ্ছি। হঠাৎ করেই জবার ওপর চোখ পড়ে। লেবাননে এক লাখের ওপর বাংলাদেশি শ্রমিক আছেন। এর সি়ংহভাগই মহিলা, …

নাভিদ চৌধুরীর ভ্রমণগদ্য-৩: শ্যাওলার নিশ্চিত যাত্রা

বসফরাসের নীল জল চাঁদের আলোয় ঝকমক করছে। আমি এক কাপ ধূমায়িত চা নিয়ে ওপারের আলো ঝলমলে ইস্তাম্বুলের মোহময়ী রূপ দেখছি। তুরস্কে আমার যৌবনের এক বড় সময় কেটেছে। ইস্তাম্বুল সেই তুরস্কের …

নাভিদ চৌধুরীর ভ্রমণগদ্য-২: আতলান্তেরর মিতা ও মিতালি

পাবলো কফি নিয়ে এসে বসেছে আমার পাশে, বলে ওলা। কমসতাস? (কেমন আছো?)! মুই বিয়েন (আমি ভালো) , বলেই আমি হাসতে হাসতে হাত জোড় করে বলি, এসো এসো(এতটুকু) আমার স্প্যানিশের জোর। …

নাভিদ চৌধুরীর ভ্রমণগদ্য-১: মরুদ্যানে কথোপকথন

আমি ধীরে ধীরে ওয়াদি শেতার পাশ ঘেঁষে হাঁটছি। গলু (আমার গাধা, নাম আমারই দেয়া) আনমনে হাঁটতে হাঁটতে এদিক ওদিক তাকাচ্ছে। আমরা মানে আমি আর আমার বন্ধু হামজা আজকে ওয়াদি শেতার …